যেসব ভারতীয় বংশোদ্ভূত ক্রিকেটার অন্য দেশে সফল !!!

যেসব ভারতীয় বংশোদ্ভূত ক্রিকেটার অন্য দেশে সফল !!!

১৪০ কোটি জনসংখ্যার দেশ ভারত। যেখানে প্রতিনিয়তই বেড়ে উঠছে হাজার হাজার। জাতীয় দলের হয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে প্রতিনিধিত্ব করেছেন প্রায় অর্ধ-সহস্র ক্রিকেটার। তবে কয়েকজন ক্রিকেটার আছে যারা ভারতীয় বংশদ্ভূত হয়েও গায়ে জড়িয়েছেন অন্য দেশের জার্সি। সেক্ষেত্রে কেউ কেউ সফল হয়েছেন, কেউ কেউ হননি। আমাদের আজকের আয়োজন সফলদের নিয়ে –

ভারতীয় বংশোদ্ভূত ক্রিকেটার – মুত্তিয়া মুরালিধরন:

অবাক হচ্ছেন? শ্রীলঙ্কার এই গ্রেট স্পিনারের প্রপিতামহ ১৯২০ এর দশকে দক্ষিণ ভারত থেকে লঙ্কা দ্বীপে পাড়ি জমান। তার পুরো পরিবার সহ তিনি শ্রীলঙ্কার ক্যান্ডিতে স্থানান্তরিত হন। তিনি একটি চা বাগান কর্মরত ছিলেন।এরপর মুরালিধরন এর বাবা সহ পরবর্তী প্রজন্মের সবার জন্ম বেড়ে ওঠা সহ সব কিছুই শ্রীলঙ্কার ক্যান্ডিতে। মুরালিধরন এর স্ত্রী মাধিমালার রামামার্থীও জন্ম ও বেড়ে উঠা ভারতের চেন্নাইতে। শ্রীলঙ্কা হয়ে ১৩৩ টি টেস্ট, ৩৫০ টি একদিনের আন্তর্জাতিক ও ১২ আন্তর্জাতিক টি টোয়েন্টি ম্যাচে প্রতিনিধিত্ব করেছেন এই স্পিনার।

ভারতীয় বংশোদ্ভূত ক্রিকেটার মুত্তিয়া মুরালিধরন
ক্রিকেটটার মুত্তিয়া মুরালিধরন

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারী বোলার তিনি। টেস্টে এবং ওয়ানডেতেও আলাদা ভাবে সর্বোচ্চ উইকেট তার দখলে একমাত্র ক্রিকেটার হিসেবে টেস্টে শিকার করেন ৮০০ উইকেট, ওয়ানডে আছে ৫৩৪ উইকেট। আন্তর্জাতিক টি টোয়েন্টি তে আছে ১৩ উইকেট। মোট ১৩৪৭ আন্তর্জাতিক উইকেট।

ভারতীয় বংশোদ্ভূত ক্রিকেটার – নাসের হুসেন:

সাবেক এই ইংলিশ অধিনায়কের জন্ম এবং বেড়ে ওঠা ভারতের মাদ্রাজে। যা বর্তমানে চেন্নাই। নাসের হুসেন ছিলেন মুহাম্মদ আলী খান ওয়ালাজার বংশধর। যিনি ১৮ শতকে আরকট রাজ্যের নবাব ছিলেন। নাসের এর সাত বছর বয়সে তার পুরো পরিবার ইংল্যান্ডে বসবাস করতে শুরু করে। এরপর সেখানেই তিনি শুরু করেন ক্রিকেট।১৯৮৯ সালে পাকিস্তানের বিপক্ষে এক ওয়ানডে ম্যাচ দিয়ে ইংল্যান্ডের জার্সিতে অভিষেক হয় তার।

ভারতীয় বংশোদ্ভূত ক্রিকেটার নাসের হুসেন
নাসের-হুসেন

এক বছর পর ইংলিশদের সাদা পোশাকেও অভিষেক ঘটে। ১৫ বছর ধরে তিনি ইংরেজদের হয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে প্রতিনিধিত্ব করেছেন৷ ইংল্যান্ডের টেস্ট ইতিহাসের অন্যতম সফল ব্যাটসম্যান এবং অধিনায়ক ছিলেন নাসের হুসেন। ৯৬ টেস্টের ক্যারিয়ারে আছে ৫৭৪ রান, ১৪ সেঞ্চুরি আর ৩৪ হাফ সেঞ্চুরি। ৮৮ ম্যাচের ওয়ানডে ক্যারিয়ারে ১ সেঞ্চুরি আর ১৬ হাফ সেঞ্চুরি তে করেন ২৩৩২ রান।

ভারতীয় বংশোদ্ভূত ক্রিকেটার – হাশিম আমলা:

২০০৪ সালে মাত্র ২১ বছর বয়সে অভিষেক হয় প্রোটিয়াদের হয়ে। অভিষেক ম্যাচ ছিলো ইডেন গার্ডেনসে ভারতের বিপক্ষে। যেটি কিনা তার নিজেরই দেশ। ১৯৮৩ এর মার্চে ডারবানের মুসলিম পরিবারে জন্ম গ্রহণ করেন এই ক্রিকেটার। তার বাবা গুজরাটের সুরাজ থেকে দক্ষিণ আফ্রিকার ডারবানে দেশান্তরিত হন তার জন্মের আগে।ক্রিকেট ক্যারিয়ারে দক্ষিণ আফ্রিকার জার্সি বেশ সফল ব্যাটসম্যান। দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেট ইতিহাসের অন্যতম সফল এক ব্যাটসম্যান তিনি।

ভারতীয় বংশোদ্ভূত ক্রিকেটার হাশিম আমলা
হাশিম-আমলা

দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে ১৮১ ওয়ানডেতে প্রায় ৫০ গড়ে করেন ৮১১৩ রান৷ ২৭ সেঞ্চুরির বিপরীতে ৩৯ হাফ সেঞ্চুরি। ওয়ানডে ক্রিকেটে তিনি দ্রুততম ২ হাজার রান, দ্রুততম ৩ হাজার রান, দ্রুততম ৪ হাজার, দ্রুত তম ৫ হাজার রান, দ্রুত তম ৬ হাজার রান, দ্রুত তম ৭ হাজার রানের মালিক।টেস্ট ক্রিকেটেও বেশ সফল একজন ব্যাটসম্যান তিনি। ১২৪ টেস্টে প্রায় ৪৭ গড়ে করেন ৯২৮২ রান। ৪১ হাফসেঞ্চুরির সাথে ২৮ টি সেঞ্চুরি। রয়েছে ৩১১* রানের একটি ট্রিপল সেঞ্চুরির ইনিংস৷ যেটি দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে প্রথম কোনো ব্যাটসম্যান করেছেন।

ভারতীয় বংশোদ্ভূত ক্রিকেটার – শিবনারায়ন চন্দরপল:

শিবনারায়ণ চন্দরপল জন্ম গ্রহণ করেন গায়ানা দ্বীপের ইউনিটি গ্রামে এবং সেখানেই বেড়ে ওঠেন এই ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান ব্যাটসম্যান। এমনি তার বাবা কামরাজ চন্দরপলও গায়ানাতেই জীবনের অনেকটা সময় কাটান। কিন্তু চন্দরপলের পূর্বপুরুষরা ভারতের অধিবাসী ছিলেন এবং সেখান থেকে ক্যারিবীয় দ্বীপ পুঞ্জে পাড়ি জমান।১৯৯৪ সালে জাতীয় দলের জার্সিতে চন্দরপল তার ক্যারিয়ার শুরু করেন৷ জাতীয় দলের হয়ে রেকর্ড ১৬৪ টি টেস্ট ম্যাচ খেলেন তিনি। ক্রিকেট ইতিহাসে যা ৫ম সর্বোচ্চ আর জাতীয় দলের হয়ে সর্বোচ্চ। ৩০ সেঞ্চুরি আর ৬৬ হাফ সেঞ্চুরিতে ৫১ এর বেশী গড়ে রান করেন ১১৮৬৭।

ভারতীয় বংশোদ্ভূত ক্রিকেটার শিবনারায়ন চন্দরপল
শিবনারায়ন-চন্দরপল

যা আন্তর্জাতিক টেস্ট ক্রিকেটে সর্বোচ্চ রান তালিকায় বেশ উপরের দিকে স্থান করে নিয়েছে। আর ওয়েস্ট ইন্ডিজে সেটি ব্রায়ান লারার ঠিক পরেই। ৪১.৬০ গড়ে ওয়ানডে তে করেছেন ৮৭৭৮ রান। ম্যাচ খেলেছেন ২৬৮ টি। ১১ সেঞ্চুরি আর ৫৯ হাফ সেঞ্চুরি। এছাড়া প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে তার রান প্রায় ২৮ হাজার, আর লিস্ট এ তে প্রায় ১৪ হাজার।

ভারতীয় বংশোদ্ভূত ক্রিকেটার – রামনারেশ সারওয়ান:

যেসব ভারতীয় বংশোদ্ভূত ক্রিকেটার অন্য দেশে সফল !!!
রামনারেশ-সারওয়ান

জন্ম, বেড়ে ওঠা এবং ক্রিকেটে হাতেখড়ি সবই গায়নার ওয়াকনাম দ্বীপে। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটও খেলেছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে। তবে তার পূর্ব পুরুষের জন্ম, বেড়ে সবই ভারতে৷ জীবিকার তাগিদে সবাই পাড়ি জমান গায়ানায়।ওয়েস্ট জাতীয় দলে শুধু খেলেছেন বললে ভুল হবে। অধিনায়কত্ব করেছেন। ২০০৭ টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপে তিনিই ছিলেন ক্যারিবীয়দের অধিনায়ক। তবে ২০১৩ সালের পর আর জাতীয় দলে ডাক পাননি। ২০১৬ সালে তুলে রাখেন বুটজোড়া।টেস্ট এবং ওয়ানডে দুই ফরম্যাটেই আছে ছয় হাজার এর কাছাকাছি রান। দুই ফরম্যাটেই গড় চল্লিশ এর বেশী, ওয়ানডে গড়টা প্রায় ৪৩। টেস্টে আছে ১৫ সেঞ্চুরি, ২১ হাফ সেঞ্চুরি। সর্বোচ্চ ২৯১। আর ওয়ানডে সেঞ্চুরি ৫ টি, বিপরীতে ৩৮ টি হাফ সেঞ্চুরি। এছাড়া ঘরোয়া ক্রিকেটে আছে সাড়ে তেরো হাজার ফার্স্ট ক্লাস রান আর সাড়ে ৯ হাজার লিস্ট এ রান৷

ভারতীয় বংশোদ্ভূত ক্রিকেটার – সুনীল নারাইন:

 

যেসব ভারতীয় বংশোদ্ভূত ক্রিকেটার অন্য দেশে সফল !!!
সুনীল-নারাইন

 

বর্তমান সময়ে ফ্র‍্যাঞ্চাইজি ভিত্তিক টি টোয়েন্টি ক্রিকেটের হট কেক সুনীল নারাইন। বিশ্বের সব প্রান্তেই খেলে বেড়াচ্ছেন দাপটের সাথে। ব্যাট হাতে ওপেনিং এ যেমন দ্রুত রান তুলতে পারেন তেমনি শেষের দিকেও ক্লিন হিটিংয়ে অসাধারণ ক্যামিও খেলতে পারেন। বল হাতে কি করতে পারেন সেটি অবশ্য সবারই জানা। ডট বল দিয়ে রান আটকানো হোক, দ্রুত উইকেট তোলা সব কিছুতেই পটু এই ক্যারিবীয় অলরাউন্ডার। টি টোয়েন্টি ক্রিকেটের জন্য এক আদর্শ কমপ্লিট প্যাকেজ।ত্রিনিদাদে জন্মগ্রহণ করা এই ক্রিকেটারের আদিপুরুষদের জন্ম ভারতে। জীবিকার তাগিদে তারা ক্যারিবীয় দ্বীপ পুঞ্জে পাড়ি জমান। ওয়েস্ট ইন্ডিজের জার্সি গায়ে নারাইন ৬ টি টেস্ট, ৬৫ ওয়ানডে ও ৫১ টি টোয়েন্টি খেলেছেন৷ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে শিকার করেছেন ১৬৬ উইকেট। স্বীকৃত টি টোয়েন্টি তে আছে ৪১৯ উইকেট।

ভারতীয় বংশোদ্ভূত ক্রিকেটার – স্টুয়ার্ট ক্লার্ক:

 

যেসব ভারতীয় বংশোদ্ভূত ক্রিকেটার অন্য দেশে সফল !!!
স্টুয়ার্ট-ক্লার্ক

 

ক্যারিয়ার খুব বেশী লম্বা নয়৷ ২০০৫ থেকে ২০০৯, মাত্র সাড়ে ৩ বছরের ক্যারিয়ার। এই অল্প সয়ে জিতেছেন বিশ্বকাপ, ২০০৬-০৭ অ্যাশেজের মতো শিরোপা গুলো। সব কিছুই জিতেছেন অজিদের হয়ে৷ জন্মেছেনও অষ্ট্রেলিয়ার নিউ সাউথ ওয়েলসে। তবে শেকড় টা আটকে আছে উপমহাদেশে। তার বাবা ব্রুস ক্লার্ক এর জন্ম এবং বেড়ে ওঠা ভারতের চেন্নাইতে। তার মা মেরি এর জন্ম ভারতের কর্নাটকের কোলার গোল্ড ফিল্ডে। অজিদের হয়ে অভিষেক হয় ২০০৫ সালের অ্যাশেজে ম্যাকগ্রার ইনজুরিতে। বয়স তখন ৩০। বিশ্বকাপ স্কোয়াডে না থাকলেও ব্রেট লি এর ইনজুরি তে বিশ্বকাপ দলে জায়গা করে নেন এবং পরবর্তীতে বিশ্বকাপ জয়ে বড় ভূমিকা পালন করেন। মাত্র ৪ বছরের ক্যারিয়ারে ২৪ টেস্টে শিকার করেছেন ৯৬ উইকেট, ৩৯ ওয়ানডেতে শিকার করেন ৫৩ উইকেট। ছিলেন অজিদের ২০০৭ টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপের স্কোয়াডেও।

ভারতীয় বংশোদ্ভূত ক্রিকেটার – রাবি বোপারা:

 

যেসব ভারতীয় বংশোদ্ভূত ক্রিকেটার অন্য দেশে সফল !!!
রাবি-বোপারা

 

পুরো নাম রবিন্দর সিং বোপারা। ইংলিশ এই অলরাউন্ডার এর জন্ম ইংল্যান্ডের লন্ডনে। খেলেছেন ইংল্যান্ড জাতীয় দলের হয়ে। তবে ইংল্যান্ডে জন্মগ্রহণ করলেও জন্ম গ্রহন করেছেন ভারতীয় এক শিক পরিবারে। যারা পাঞ্চাব থেকে ইংল্যান্ডে দেশান্তরীত হয়েছে।২০০৭ সাথে ইংল্যান্ডের জার্সিতে অভিষিক্ত হন। বোপারা ইংল্যান্ডের হয়ে ১২০ ওয়ানডে, ৩৮ টি টোয়েন্টি আর ১৩ টি টেস্টে খেলেন। ওয়ানডে তে করেন ২৬৯৫ রান আছে ৪০ টি উইকেট, টেস্টে ৫৭৫ রান আর টি টোয়েন্টি রান ৭১১। টেস্ট ক্রিকেটে রয়েছে টানা তিন ইনিংসে সেঞ্চুরির রেকর্ড। ফ্রাঞ্চাইজি লীগ গুলোতে ভালোই নাম ডাক রয়েছে তার৷ প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে রান প্রায় ১৩ হাজার, লিস্ট এ তে প্রায় ১০ হাজার আর টি টোয়েন্টি তে প্রায় ৮ হাজার রান। রয়েছে সাড়ে সাতশো এর বেশী উইকেট।

ভারতীয় বংশোদ্ভূত ক্রিকেটার –  মন্টি পানেসার:

 

যেসব ভারতীয় বংশোদ্ভূত ক্রিকেটার অন্য দেশে সফল !!!
মন্টি-পানেসার

 

পুরো নাম মধুসুদন সিং মন্টি পানেসার৷ জন্ম ইংল্যান্ডে হলেও পূর্বপুরুষদের আদিনিবাস ভারতের পাঞ্চাব৷ তিনি একটি সিক পরিবারে জন্ম গ্রহণ করেন৷ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ২০০৭ সালে অভিষেক হওয়া এই ক্রিকেটার ইংল্যান্ডের হয়ে ৫০ টেস্টে নেন ১৫৭ উইকেট। প্রথম শ্রেণীর উইকেট ৭০৯ টি। ছিলেন ইংল্যান্ড এর কয়েকটি ঐতিহাসিক ম্যাচ৷ এছাড়া রোহান কানহাই, রাবি রামপাল, দীনেশ রামদিন, সামিট প্যাটেল, তন্ময় মিশ্র, আশীষ বাগাই, আসিফ করিম সহ আরো অনেকেই ভারতী বংশদ্ভূত হয়েও বিভিন্ন দেশের জার্সিতে প্রতিনিধিত্ব করেছেন। রাহুল দ্রাবিড় স্কটল্যান্ড এর জার্সিতে ঘরোয়া ক্রিকেটে ও লিস্ট এ ম্যাচে প্রতিনিধিত্ব করেছেন।

লেখকঃ ইশতিয়াক শাওন

[স্পোর্টস গুরুকুল]

মন্তব্য করুন