আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে যত হ্যাট্রিক !!!

আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে যত হ্যাট্রিক: ১৮৭৯ সালের ২রা জানুয়ারী অজি পেসার ফ্রেডরিক স্পফোর্থ মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে ইংল্যান্ড এর বিপক্ষে পর পর তিন বলে তিন উইকেট শিকার করে ক্রিকেট ইতিহাসের প্রথম হ্যাট্রিক শিকারি বোলার হিসেবে ইতিহাস হয়ে যান। তার শিকার করা সেই তিন ব্যাটসম্যান ছিলেন ভ্যারনন রয়লি, ফ্রান্সিস ম্যাকিনন, টম অ্যমেট। এরপর টেস্ট ক্রিকেটে হ্যাট্রিক হয়েছে আরো ৪৫ টি৷ মোট হ্যাট্রিক সংখ্যা ৪৬।

ওয়ানডে ক্রিকেটে হ্যাট্রিক এর খাতা খোলে ১৯৮২ সালে হায়দ্রাবাদে অজিদের বিপক্ষে পাকিস্তানি পেসার জালাল উদ-দীন এর হ্যাট্রিক দিয়ে৷ এরপর ওয়ানডে ক্রিকেটে হ্যাট্রিক হয়েছে ৪৮ টি। মোট হ্যাট্রিক ৪৯ টি। আন্তর্জাতিক টি টোয়েন্টি ক্রিকেটে প্রথম হ্যাট্রিক শিকারী বোলার অজি গতি তারকা ব্রেট লি। এখন পর্যন্ত আন্তর্জাতিক টি টোয়েন্টি মোট হ্যাট্রিক হয়েছে ১৮ টি৷

আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে যত হ্যাট্রিক
ফ্রেডরিক স্পফোর্থ

২০০৭ সালের ১৬ই সেপ্টেম্বর টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সুপার এইটের ম্যাচে মুখোমুখি হয় বাংলাদেশ বনাম অষ্ট্রেলিয়া। ১৭ তম ওভারের ৩য় বলে সাকিব তালুবন্দী হন গিলক্রিস্টের, ৪র্থ বলে বোল্ড হন মাশরাফি এবং ৫ম বলে এলবিডব্লুর ফাঁদে পড়েন অলক কাপালি। এই ৩ জনকে আউট করে প্রথম বোলার হিসেবে টি টোয়েন্টি ক্রিকেটে হ্যাট্রিক এর রেকর্ড গড়েন অজি বোলার ব্রেট লি।

টি টোয়েন্টি ক্রিকেটের দ্বিতীয় হ্যাট্রিক করেন কিউই পেসার জ্যাকব ওরাম। ২০০৯ সালের ২রা সেপ্টেম্বর কলম্বোর প্রেমাদাসায় অ্যাঞ্জেলা ম্যাথিউস, মালিঙ্গা বান্দারা এবং নুয়ান কুলাসেকারাকে আউট করে এই কীর্তি গড়েন তিনি৷

[ আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে যত হ্যাট্রিক ]

২০১০ সালের ২৬ ই ডিসেম্বর অকল্যান্ডের ইডেন পার্কে তিন পাকিস্তানি ব্যাটসম্যান ইউনিস খাঁন, মোহাম্মদ হাফিজ এবং উমর আকমালকে আউট করে এই লিস্টে ঢুকেন আরেক কিউই পেসার টিম সাউথি।

২০১০ থেকে ২০১৬, দীর্ঘ ৬ বছর টি টোয়েন্টি ক্রিকেটে হয়নি কোনো হ্যাট্রিক। ২০১৬ সালের ১২ই ফেব্রুয়ারী, বাঁচিতে ভারতের বিপক্ষে হার্দিক পান্ডিয়া, সুরেশ রায়না এবং যুবরাজ সিং এর মতো তিন ব্যাটসম্যানকে পর পর তিন বলে আউট করেন লঙ্কান অলরাউন্ডার – পেসার থিসারা পেরেরা। তবে দুর্ভাগ্যবশত সেই ম্যাচে পরাজিত হয় তার দল।

ওয়ানডে ক্রিকেটে কয়েকটি হ্যাট্রিক এবং ডাবল হ্যাট্রিক থাকলেও আন্তর্জাতিক টি টোয়েন্টি তে ছিলো না কোনো হ্যাট্রিক। ২০১৭ এর ৬ এপ্রিল বাংলাদেশের বিপক্ষে এসে সেই ক্ষুধা মেটান মালিঙ্গা। আউট করেন মুশফিকুর রহিম, মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা এবং মেহেদী হাসান কে।

এটি ছিলো মাশরাফির শেষ আন্তর্জাতিক টি টোয়েন্টি ম্যাচ। সে ম্যাচে হেরেছিলো শ্রীলঙ্কা।

একই বছরের ২৭ অক্টোবর শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে আবুধাবির শেখ জায়েদ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে এই কীর্তি গড়েন পাকিস্তানী অলরাউন্ডার ফাহিম আশরাফ। শিকার করেন ইসুরু উদানা, মাহেলা উদাওয়াত্তে এবং দাসুন শানাকার উইকেট।

[ আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে যত হ্যাট্রিক ]

আন্তর্জাতিক টি টোয়েন্টিতে যত হ্যাট্রিক
ব্রেট লি

আন্তর্জাতিক টি টোয়েন্টি ক্রিকেটে রাশিদ খাঁন এর হ্যাট্রিক টি একটু বেশী স্মরণীয় হয়ে থাকবে। কারণ তিনি শিকার করেন পর পর চার বলে চার উইকেট। যেটি আন্তর্জাতিক টি টোয়েন্টির প্রথম ডাবল হ্যাট্রিকআয়ারল্যান্ড এর বিপক্ষে দেরাদুন এর রাজিব গান্ধী আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ২০১৯ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারীতে তিনি আউট করেন কেভিন ও ব্রায়েন, জর্জ ডকরেল, শেন গেটক্যাট এহং সিমি সিংকে।

রাশিদ খাঁন এর ডাবল হ্যাট্রিকের পর আন্তর্জাতিক টি টোয়েন্টিতে ডাবল হ্যাট্রিক এর কীর্তি গড়েন ওয়ানডে তে এর আগে ডাবল হ্যাট্রিক এর রেকর্ড গড়া লাসিথ মালিঙ্গা। সেই সাথে প্রথম বোলার হিসেবে টি টোয়েন্টি তে দুটি হ্যাট্রিকের বিরল রেকর্ড গড়েন। ক্যান্ডির পাল্লেকেলে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে পর পর চার বলে আউট করেন কলিন মুনরো, হামিশ রাদারফোর্ড, কলিন ডি গ্র‍্যান্ডহোম এবং রস টেলরকে। ঘটনাটি ২০১৯ সালের ০৬ সেপ্টেম্বর এর।

মাসখানেক পর অক্টোবর এর ০৫ তারিখে মালিঙ্গার দেশ শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে হ্যাট্রিক করেন পাকিস্তানি পেসার মোহাম্মদ হাসনাইন। লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে আউট করেন ভানুকা রাজাপাকসে, দাসুন সানাকা এবং সিহান জয়সুরিয়াকে।

এরপরের নাম দুটি বিশ্ব ক্রিকেটে অচেনা। ওমানের খাওয়ার আলী নেদারল্যান্ডস এর বিপক্ষে মোহাম্মদ হাসনাইনের ৪ দিন পরেই করেন হ্যাট্রিক, ভ্যেনু ওমাসের মাসকাট। ১০ দিন পর পাপুয়া নিউগিনির নরম্যান ভানুয়া বারমুডার বিপক্ষে দুবাইতে করেন হ্যাট্রিক।

[ আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে যত হ্যাট্রিক ]

 

আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে যত হ্যাট্রিক !!!
অ্যাসটন অ্যাগার

 

এরপর এর নামটা আবারো বাংলাদেশের বিপক্ষে। ২০১০ সালের ১০ নভেম্বর নাগপুরে বাংলাদেশের বিপক্ষে শফিউল ইসলাম, মুস্তাফিজুর রহমান এবং আল আমিনকে আউট করে হ্যাট্রিক করেন ভারতীয় পেদার দীপক চাহার৷ সে ম্যাচে মাত্র ৭ রানে ৬ উইকেট শিকার করেন তিনি।

দ্বিতীয় অষ্ট্রেলিয়ান হিসেবে এই লিস্টে নাম লেখান অ্যাসটন অ্যাগার। ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারিতে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে জোহানসবার্গে ফাফ ডু প্লেসিস, ফেহলুকায়ো এবং ডেল স্টেইন কে আউট করেন তিনি।

একই ম্যাচে আগের ওভারে করেছেন হ্যাট্রিক আবার পরের ওভারেই হজম করেছেন ৬ বলে ছক্কা। ২০২১ সালের মার্চে এমন ঘটনার সাক্ষী হন আকিলা ধনাঞ্জয়া। আউট করেছেন এভিন লুইস, ক্রিস গেইল এবং নিকোলাস পুরান দের মতো ব্যাটসম্যানদের। আর ছয় ছক্কা হজম করেছিলেন কাইরন পোলার্ডের কাছে। হেরেছিল শ্রীলঙ্কা।

পরের নাম দুটিও একেবারেই অচেনা। ২০২১ সালের ৮ জুলাই মাল্টার মার্সা স্পোর্টস ক্লাব মাঠে মাল্টার বোলার ওয়াসিম আব্বাস বেলজিয়ামের বিপক্ষে হ্যাট্রিক করেন৷ এরপর দিন একই ভেন্যু তে বেলজিয়াম এর বোলার সিরাজ শেখ মাল্টার বিপক্ষে একই কীর্তি গড়েন। অর্থাৎ প্রতিশোধ।

[ আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে যত হ্যাট্রিক ]

 

আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে যত হ্যাট্রিক !!!
নাথান এলিস

 

প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে আন্তর্জাতিক টি টোয়েন্টি ক্রিকেটের অভিষেকে হ্যাট্রিক করেন অজি পেসার নাথান এলিস। ২০২১ সালের ৬ ই আগস্ট মিরপুর শের ই বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, মুস্তাফিজুর রহমান এবং মেহেদী হাসান কে আউট করে এই কীর্তি গড়েন। যদিও ম্যাচটি হেরেছে তার দল।

লিস্টের সর্বশেষ নামটাও একেবারেই অচেনা। কেনিয়ার এলিযাহ ওটিইনো ২০২১ এর ১৭ই সেপ্টেম্বর উগান্ডার বিপক্ষে সর্বশেষ বোলার হিসেবে আন্তর্জাতিক টি টোয়েন্টি তে হ্যাট্রিক এর কীর্তি গড়েন।

[আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে যত হ্যাট্রিক] 

আরও পড়ুন:

 

মন্তব্য করুন