সুনীল নারাইন অলরাউন্ড নৈপুণ্যে তৃতীয়বারের মতো বিপিএলের শিরোপা জিতলো কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স

গত ম্যাচের মতো, এবারো কুমিল্লার জয়ের নায়ক সুনীল নারাইন [ Sunil Narine ]। তবে, এবার শুধু ব্যাট হাতে নয়, বল হাতেও দলকে কঠিন সময়ে ব্রেক থ্রু দিয়ে এবং ইকোনোমিকাল বোলিং করে নিজ দল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সকে জয়ের বন্দরে পৌছাতে সাহায্য করেছে। সুনীল নারাইন [ Sunil Narine ] ব্যাট হাতে করেন ২৩ বলে ৫৭ রান এবং বল হাতে নেন  ২টি উইকেট। সুনীলের অল রাউন্ড নৈপুণ্যেই তৃতীয়বারের মতো বিপিএলের শিরোপা জয়লাভ করে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স।

সুনীল নারিনের অলরাউন্ড নৈপুণ্যে তৃতীয়বারের মতো বিপিএলের শিরোপা জিতলো কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স
ব্যাট হাতে সুনীল নারিন [ Sunil Narine ]
মিরপুরে টস জিতে ব্যাট করতে নামে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। ইনিংসের প্রথম ওভার থেকেই দ্রুত গতিতে রান তুলতে থাকেন আগের ম্যাচের হাফ সেঞ্চুরিয়ন সুনীল-নারাইন [ Sunil Narine ]। প্রথম ওভারেই আফগান বোলার মুজিব উর রহমানকে ২ ছয় এবং ১টি চারের মার সহযোগে মোট ১৮ রান করে কুমিল্লা, যার মধ্যে ১৭ রান আসে কুমিল্লা ওপেনার সুনীল নারিনের ব্যাট থেকে। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারের বোলার শফিকুল ইসলামকে ২টি ছয় এবং ১টি চার মারেন ওপেনার সুনীল-নারাইন [ Sunil Narine ]।

সুনীল নারাইন [ Sunil Narine ] এর অলরাউন্ড নৈপুণ্যে তৃতীয়বারের মতো বিপিএলের শিরোপা জিতলো কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স

তবে, এরপরের ওভারেই বোলিং করতে আসেন সাকিব। সে ওভারের শেষ বলে লিটোন দাসকে বোল্ড করে প্যাভিলিয়নে ফেরান সাকিব যার কারণে, কুমিল্লার রানের চাকা পূর্বের তুলনায় কিছুটা ধীর হয়। এরপর, ব্যাটার মাহমুদুল হাসান জয়কে একটি পার্টনারশিপ গড়ার চেষ্টা করতে থাকেন সুনীল নারাইন [ Sunil Narine ]।

২১ বলে নিজের অর্ধশতক হাকান সুনীল নারাইন [ Sunil Narine ]। দলীয় ৬৯ রানে মেহেদি হাসান রানার বলে নাজমুল হাসান শান্তর হাতে ক্যাচ দিয়ে আউট হন সুনীল-নারাইন [ Sunil Narine ]। এরপর দলীয় ৯৫ রানের মধ্যে ৬ উইকেট হারিয়ে সাময়িক বিপর্যয়ে পড়ে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স।

কুমিল্লার স্কোর ৯৫ রানে ৬ উইকেট , তখন ক্রিযে ইংলিশ তারকা অলরাউন্ডার মঈন আলী এবং বোলিং অলরাউন্ডার আবু হায়দার রনি। আবু হায়দার রনিকে নিয়ে ধীরে ধীরে রানের খাতা সচল করতে থাকেন অভিজ্ঞ মঈন আলী।

উইকেটের এক প্রান্ত থেকে যেনো আর কোনো উইকেটের পতন না হয়, সেদিকে দৃষ্টি রেখে বেশ দেখেশুনেই ব্যাটিং করছিলেন আবু হায়দার রনি। ১৯ ওভারের প্রথম বলে রান আউটে কাটা পড়ে নিজের উইকেট হারান মঈন আলী। আউট হওয়ার আগে ৩২ বলে ৩৮ রান করেন মঈন ,যেখানে রয়েছে ২টি চার এবং ১টি ছয়ের মার। শেষ পর্যন্ত ১৫১ রানে থামে কুমিল্লার ইনিংস।

সুনীল নারিনের অলরাউন্ড নৈপুণ্যে তৃতীয়বারের মতো বিপিএলের শিরোপা জিতলো কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স
উইকেট পাওয়ার পর কুমিল্লার উল্লাস

১৫২ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই হোচট খায় বরিশাল। পুরো টুর্নামেন্ট জুড়ে আক্রমণাত্মক ব্যাটিং করা ইনফর্ম ব্যাটার মুনিম শাহরিয়ার ব্যাক্তিগত রানের খাতা খোলার আগেই প্যাভিলিয়নে ফিরে যান। দলীয় ৫ রানে পেসার শহীদুল ইসলামের বলে ফ্যাফ ডু প্লেসিসের হাতে ক্যাচ দিয়ে আউট হন মুনিম। এরপর ক্রিজে আসেন ডানহাতি ব্যাটার সৈকত আলী।

ক্রিজে আগমণের পর থেকেই ধুমধারাক্কা ব্যাটিংয়ের মাধ্যমে বরিশালকে জয়ের কাছাকাছি দ্রুত পৌছে নিতে থাকেন ব্যাটার সৈকত আলী। উইকেটের অপর প্রান্তে থাকা ক্রিস গেইল শুধু স্ট্রাইক রোটেট করছিলেন। দলীয় ৭৯ রানে বাহাতি স্পিনার তানভীর ইসলামের বলে আউট হন সৈকত আলী।

৩৪ বলে ৫৮ রান করে আউট হন সৈকত আলী যেখানে ছিলো ১১টি চার এবং ১টি ছয়ের মার। সৈকত আউট হওয়ার পর হাত খুলে ব্যাটিং করা শুরু করেন ক্রিস গেইল। তবে , দলীয় ১০৭ রানে প্যাভিলিয়নে ফেরেন গেইল।

তবে বিপত্তি ঘটে  পুরো টুর্নামেন্টে ফর্মে থাকা ব্যাটার সাকিব আল হাসান দলীয় ১১৭ রানে আউট হলে। দলীয় ১৩৪ এবং ১৩৬ রানে দুই ব্যাটার নুরুল হাসান সোহান এবং ডোয়েন ব্রাভো আউট হলে ধীরে ধীরে নিজেদের ব্যাটিংয়ে খেই হারাতে থাকে ফরচুন বরিশাল। সোহান ১৩ বলে ১৪ এবং ব্রাভো ২ বলে ১ রান করে আউট হন।

সুনীল নারিনের অলরাউন্ড নৈপুণ্যে তৃতীয়বারের মতো বিপিএলের শিরোপা জিতলো কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স
মোস্তাফিজুর রহমান

দলীয় ১৩৬ রানে, মোস্তাফিজুর রহমানের অসাধারণ বলে লেগ বিফোর উইকেটের ফাদে পড়ে সাজঘরে ফেরেন ব্যাটার নাজমুল হাসান শান্ত। অষ্টাদশ ওভারে, মাত্র ৬ রান দেন মোস্তাফিজ। যার কারণে, শেষ ওভারের জয়ের জন্য বরিশালের প্রয়োজন পড়ে ৬ বলে ১০ রান।

শেষ ওভারের কুমিল্লার হয়ে বোলিং করতে আসেন পেসার শহীদুল ইসলাম এবং বরিশালের হয়ে উইকেটে উপস্থিত আছেন দুই ব্যাটার তৌহিদ হৃদয় এবং মুজিব উর রহমান।

১৯তম ওভারের প্রথম বলটি ডট হয়। এরপর, ওভারের দ্বিতীয় এবং তৃতীয় বলে পরপর দুটি সিঙ্গেল নেন, দুই ব্যাটার তৌহিদ হৃদয় এবং মুজিব উর রহমান। ওভারের চতুর্থ বলে, ওয়াইডে ১টি রান পায় বরিশাল। সে ওভারের বাকি বল্ম  গুলোতে আর কোনো বাউন্ডারি হাকাতে পারেনি বরিশালের কোনো ব্যাটারই। যার কারণে, অবশেষে ১ রানের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। নিজের অলরাউন্ড নৈপুণ্যের কারণে, ম্যাচসেরা হন সুনীল নারাইন।

 

সুনীল নারিনের অলরাউন্ড নৈপুণ্যে তৃতীয়বারের মতো বিপিএলের শিরোপা জিতলো কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স

 

আরও দেখুন:

“সুনীল নারাইন অলরাউন্ড নৈপুণ্যে তৃতীয়বারের মতো বিপিএলের শিরোপা জিতলো কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স”-এ 4-টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন