ভিভ রিচার্ডস : ক্রিকেটের প্রথম রাজপুত্র

ভিভ রিচার্ডস, বিশ্ব ক্রিকেটের প্রথম রাজপুত্র। হ্যা, কোনো রুপ ভয় ডর ছাড়াই ক্রিকেট মাঠে নিজের ব্যাটের দ্যুতি ছড়িয়েছেন ভিভ। বিশ্বের সব দ্রুতগতির বোলারদের বিপক্ষে হেলমেট ছাড়া ব্যাটিং করতে নেমে তাদের তুলোধুনো করে ছেড়ে দিতেন ভিভ।

টেস্ট অভিষেক ১৯৭৪ সালে ভারতের মাটিতে। ব্যাঙ্গালোরে অভিষেক টেস্টে দুই ইনিংস মিলিয়ে করেছিলেন মোটে ৭ রান। তবে বিশ্বমঞ্চে নিজের নাম জাহির করতে সময় নিলেন কেবল ওই এক টেস্টই। পরের টেস্টেই খেললেন অপরাজিত ১৯২ রানের বিস্ফোরক ইনিংস।

১৯৭৫ টা ব্যক্তিগতভাবে খুব একটা ভালো যায়নি তাঁর, কিন্তু সেটা পুষিয়ে দিয়েছেন ১৯৭৬ এ এসে। ওই এক বছরেই করেছেন ১৭১০ রান, এর মধ্যে আছে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে এক সিরিজেই অবিশ্বাস্য ৮২৯ রান করার রেকর্ড! তাও সেই সিরিজে একটি ম্যাচে খেলা হয়নি তাঁর, খেললে হয়তো এক সিরিজে ১০০০ রান করার অকল্পনীয় রেকর্ডটাও করে ফেলতেন।

তবে যা করেছেন সেটিও টিকে ছিল ৩ দশক, ২০০৬ এ এসে মোহাম্মদ ইউসুফ ভেঙ্গে দেয়ার আগে ভিভের ১৭১০ ই ছিল এক পঞ্জিকাবর্ষে সবচেয়ে বেশি রানের রেকর্ড। অবিস্মরণীয় সেই ইংল্যান্ড সিরিজে স্বাগতিকদের ৩০ তে বিধ্বস্ত করেছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ, আর ব্যাট হাতে তার নেতৃত্ব দিয়েছিলেন ভিভ। ওই সিরিজেই ডাবল সেঞ্চুরি করেছিলেন দুইটি, যার মধ্যে ছিল ওভালে তাঁর ক্যারিয়ারসেরা ইনিংস ২৯১ ও।

ভিভ রিচার্ডসঃ ক্রিকেটের প্রথম রাজপুত্র
ভিভ রিচার্ডসঃ ক্রিকেটের প্রথম রাজপুত্র

 

ভিভ রিচার্ডসঃ ক্রিকেটের প্রথম রাজপুত্র

পরের ৫ বছরে তাঁর গড় কিছুটা নিচের দিকেই নেমে গিয়েছিল, কিন্তু ভিভ আবার নিজের চেনা রূপে ফিরেছেন ১৯৮০ থেকে ১৯৮৬ এই সময়ের মধ্যে। এই ৬ বছরে ১২ টি সিরিজ খেলে ১০ টি সেঞ্চুরি করেছেন! তবে ক্যারিয়ারের শেষ দিকে এসে ফর্মটা বেশ পড়তির দিকেই ছিল ক্যারিবিয়ান কিংয়ের। শেষ ১৯ টেস্টে মাত্র ১ টি সেঞ্চুরি আর ১০ টি ফিফটিই করতে পেরেছিলেন তিনি।

ক্যারিয়ারে মোট ২৯ টি সিরিজ খেলেছেন, তার মধ্যে ১৪ টিতেই তাঁর গড় ছিল পঞ্চাশের উপর। গড় ত্রিশের নিচে ছিল কেবল ৭ টি সিরিজে, যার বেশিরভাগই ছিল ক্যারিয়ারের শেষভাগে। যে ২৪ টি টেস্ট সেঞ্চুরি করেছেন, তার ১২ টিতেই তিনি ছিলেন জয়ী দলে।

রিচার্ডসের ক্যারিয়ার চলাকালীন সময়ে কেবল গর্ডন গ্রিনিজই দল জিতেছে এমন ম্যাচে রিচার্ডসের চেয়ে বেশি সেঞ্চুরি করেছেন। দেশের বাইরে ওয়েস্ট ইন্ডিজের জেতা ম্যাচগুলোতেও ভিভ ছিলেন দারুণ সপ্রতিভ, ৬ সেঞ্চুরিতে প্রায় ৫৪ গড়ে রান করেছেন বিদেশের মাটিতে জেতা টেস্টগুলোতে। চতুর্থ ইনিংসে অনেক ব্যাটসম্যানই যেখানে খাবি খান, রিচার্ডসের গড় সেখানে ছিল ৪৮ এর কাছাকাছি।

 

ভিভ রিচার্ডসঃ ক্রিকেটের প্রথম রাজপুত্র
১৯৭৯ সালে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ভিভ

 

সব বোলারকেই কমবেশি পিটিয়েছেন, তবে রিচার্ডসের রুদ্রমূর্তি সবচেয়ে ভয়ংকরভাবে দেখেছেন ইংলিশ বোলারেরা। টেস্ট ক্যারিয়ারের মোট রানের একতৃতীয়াংশই করেছেন ইংল্যান্ডের বিপক্ষে, ৮ সেঞ্চুরিতে ৬২ এর বেশি গড়ে করেছেন ২৮৬৯ রান।

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে কমপক্ষে ২০০০ রান করেছেন, এমন ব্যাটসম্যানদের মধ্যে ভিভের চেয়ে বেশি গড় আছে কেবল স্যার ডনের। নিজের প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরি করেছেন যাদের বিপক্ষে, সেই ভারতীয় বোলারদেরও কচুকাটা করেছেন, পেয়েছেন ৭ টি সেঞ্চুরি।

গোটা ক্যারিয়ারে অনেক পজিশনেই ব্যাট করেছেন, তবে ভিভের সেরাটা দেখা গেছে ৩ নম্বরে। ওয়ান ডাউনে ৫৯ ইনিংস ব্যাট করে ৬১.৫৪ গড়ে করেছেন ৩৫০৮ রান, ২৪ সেঞ্চুরির অর্ধেকই এসেছে এই পজিশনে ব্যাট করে।

৩ নম্বরে অন্তত ৫০ ইনিংসে ব্যাট করেছেন, এমন ব্যাটসম্যানদের মধ্যে ভিভের চেয়ে বেশি গড় আছে কেবল ব্র্যাডম্যান আর ওয়ালি হ্যামন্ডের। ৩ নম্বরে ব্র্যাডম্যানের গড় তো রীতিমত অবিশ্বাস্য, ৫৬ ইনিংসে ব্যাট করে ১০৩.৬৩ গড়ে করেছেন ৫০৭৮ রান!

প্রিয় প্রতিপক্ষ ইংলিশদের বিপক্ষেই ১৯৮৫৮৬ মৌসুমে ৫০ তে জেতা সিরিজে হোম গ্রাউন্ড অ্যান্টিগায় গড়েছিলেন নিজের ক্যারিয়ারের সবচেয়ে স্মরণীয় কীর্তিটি। মাত্র ৫৬ বলে সেঞ্চুরি করে টেস্ট ইতিহাসে দ্রুততম সেঞ্চুরির রেকর্ডটি লিখেছিলেন নতুন করে।

ভিভ রিচার্ডসঃ ক্রিকেটের প্রথম রাজপুত্র
১৯৮৩ বিশ্বকাপে ভিভ

 

ব্রেন্ডন ম্যাককালাম ভেঙ্গে দেয়ার আগে পর্যন্ত এটিই ছিল টেস্টের দ্রুততম সেঞ্চুরি, মিসবাহ উল হক অবশ্য মাঝে ভাগ বসিয়েছিলেন ভিভের রেকর্ডে। ৮৪ টি ছয় নিয়ে টেস্টে সবচেয়ে বেশি ছয় মারার তালিকায় ভিভ আছেন আট নম্বরে, ১০৭ টি ছক্কা নিয়ে এখানেও সবার উপরে ম্যাককালাম।

ব্যাটসম্যান ভিভের পাশাপাশি অধিনায়ক ভিভেরও আছে দারুণ একটি কীর্তি। ক্লাইভ লয়েডের অবসরের পর ১৯৮৫ তে অধিনায়কের দায়িত্ব নিয়ে দলকে নেতৃত্ব দিয়েছেন ৫০ টি টেস্টে, এর মধ্যে জিতেছেন ২৭ টিতে ও হেরেছেন ১৫ টিতে। কিন্তু যতগুলো সিরিজে অধিনায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন, হারেননি এর একটিতেও!

বড় মঞ্চে সবসময়ই উজ্জ্বল ছিলেন ভিভ। ১৯৭৯ বিশ্বকাপ ফাইনালে তাঁর অপরাজিত ১৩৮ এখনো বিশ্বকাপ ইতিহাসের সেরা ইনিংসগুলোর একটি। বিশ্বকাপে হাজারের বেশি রান করেছেন, এমন ব্যাটসম্যানদের মধ্যে ভিভের গড়ই সেরা। বিশ্বকাপের মঞ্চে ২৩ ম্যাচ খেলে ৬৩.৩১ গড়ে রান করেছেন ১০১৩, ৫ ফিফটির পাশাপাশি আছে ৩ টি সেঞ্চুরিও।

টেস্টের মত ওয়ানডেতেও নিজের সর্বোচ্চ স্কোর ভিভ করেছিলেন ইংল্যান্ডের বিপক্ষেই। ১৯৮৪ সালে ইংলিশদের বিপক্ষে ম্যাচে দলের ২৭২ এর মধ্যে তিনি একাই করেছিলেন অপরাজিত ১৮৯ রান! ইনিংসটি খেলার পথে শেষ উইকেটে মাইকেল হোল্ডিংয়ের সাথে ১০৬ রানের জুটি গড়েছিলেন, যা এখনো বিশ্বরেকর্ড হিসেবে টিকে আছে।

ভিভের এই ইনিংসটিকে উইজডেন সর্বকালের সেরা ওয়ানডে ইনিংস হিসেবেও স্বীকৃতি দিয়েছে। ভিভ সম্পর্কে আরও একটি বিশেষ তথ্য, তিনি সেঞ্চুরি করেছেন এমন কোন ওয়ানডেতেই হারেনি ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

ভিভ রিচার্ডসঃ ক্রিকেটের প্রথম রাজপুত্র

আরও পড়ুন:

মন্তব্য করুন