আয়ারল্যান্ডের হয়ে বিশ্বকাপ খেলেছিলেন বিশ্বকাপজয়ী ইয়ন মর্গ্যান

বিশ্বকাপজয়ী ইয়ন মর্গ্যান: আয়ারল্যান্ডের হয়ে বিশ্বকাপ খেলেছিলেন ইংল্যান্ডের বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়ক ইয়ন মর্গ্যান। ২০০৭ সালের উইন্ডিজ বিশ্বকাপে আয়ারল্যান্ডের জার্সি গায়ে জড়িয়েছিলেন তিনি। এর কয়েক বছর পরই আয়ারল্যান্ড দল ছেড়ে ইংল্যান্ড দলে যোগ দেন তিনি। ২০১৮ বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের অধিনায়ক হয়ে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হয়েছিলেন সাবেক এ আয়ারল্যান্ডের ক্রিকেটার। ইয়ন মর্গ্যান ছাড়াও, আয়ারল্যান্ড দলের আরো এড জয়েস এবং বয়েড র‍্যাংকিংও ইংল্যান্ডের হয়ে ক্রিকেট খেলেছেন।

আয়ারল্যান্ডের হয়ে বিশ্বকাপ খেলেছিলেন বিশ্বকাপজয়ী ইয়ন মর্গ্যান
ইয়ন মর্গ্যান

 

জন্মসূত্রে আইরিশ ইয়ন মর্গ্যান ওয়ান ডে খেলেছেন আয়ারল্যান্ড এবং ইংল্যান্ড দু’দলের হয়েই। ২০০৬ সালে আয়ারল্যান্ডের জার্সিতে স্কটল্যান্ডের বিরুদ্ধে ওয়ানডে অভিষেক হয় তার। আইরিশদের হয়ে ২৩টি ওয়ান ডে খেলা মর্গ্যান ২০০৯ সালে জার্সি বদলে হয়ে যান ইংল্যান্ডের খেলোয়াড়। আয়ারল্যান্ডের হয়ে ২০০৭ এবং ইংলিশদের হয়ে ২০১১ ও ২০১৫ বিশ্বকাপ খেলা এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান বর্তমানে ইংল্যান্ডের ওয়ান ডে ও টি-২০ দলের নিয়মিত সদস্য এবং এই দুই ফর্ম্যাটে দলকে নেতৃত্বও দিচ্ছেন অনেকদিন ধরে।

এমনকি তার নেতৃত্বেই ইংল্যান্ড ২০১৯ বিশ্বকাপে প্রথমবার বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হয়ে বিশ্বকাপজয়ী হয়েছে।

মর্গ্যান সানডে টাইমস পত্রিকাকে জানান যে, ‘তেরো বছর বয়স থেকেই আমি ইংল্যান্ডের পক্ষে ক্রিকেট খেলতে চেয়েছি। সেজন্যে তা বলতে আমি কোনরূপ লজ্জ্বাবোধ করিনি যা আমি করতে চেয়েছি। ক্রিকেটের সাথে সংশ্লিষ্ট নিজ দেশের ব্যক্তিরাও এতে একমত পোষণ করেছিলেন, “সুন্দর খেলা প্রদর্শনে যদি তুমি তা করতে পারো তাহলে তা হবে অবিশ্বাস্য”। তাই আমার এ বিষয়ে কোন লজ্জ্বাবোধ হয়নি এবং আমার বাবাও এ বিষয়ে কোন লজ্জ্বা অনুভব করেননি’।
আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের ১০টি পূর্ণাঙ্গ সদস্যভূক্ত দেশ হিসেবে ইংল্যান্ড অন্যতম, যেখানে আয়ারল্যান্ড দল তৎকালীন সময়ই সহযোগী সদস্য দেশ হিসেবে অংশগ্রহণ করেছিল। একমাত্র পূর্ণাঙ্গ সদস্যভূক্ত দেশগুলোই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে টেস্ট ম্যাচসহ সকল স্তরের ক্রিকেটেই অংশগ্রহণ করতে পারে। মর্গ্যান ইংল্যান্ডের টুয়েন্টি২০ দলের অন্যতম সদস্যরূপে ওয়েস্ট ইন্ডিজে অনুষ্ঠিত ২০১০ আইসিসি বিশ্ব টুয়েন্টি২০ প্রতিযোগিতায় অংশ নেন।
গ্রুপ-পর্বের খেলায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ এবং নিজ মাতৃভূমি আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে দলের সর্বোচ্চ রান করেন।এছাড়াও, সুপার এইট পর্বে নিউজিল্যান্ডের পক্ষেও তিনি একই ভূমিকা নেন।দলের কার্যকরী বোলিং ও কেভিন পিটারসন এবং ক্রেইগ কাইজওয়েটারের অর্ধ-শতকে সেমি-ফাইনাল ও ফাইনালে যথাক্রমে শ্রীলঙ্কা এবং অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে অপরাজিত থেকে দলকে জয়ের প্রান্তে নিয়ে যান। আয়ারল্যান্ডে জন্মগ্রহণকারী প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে ইংল্যান্ডের পক্ষে ফ্রেডরিক ফেনের সেঞ্চুরি করার শতাধিক বছর পর জুলাই, ২০১০ সালে ট্রেন্ট ব্রিজে সফরকারী পাকিস্তানের বিপক্ষে ইয়ন মর্গ্যান তার এ রেকর্ডের সাথে যুক্ত হন।
আয়ারল্যান্ডের হয়ে বিশ্বকাপ খেলেছিলেন বিশ্বকাপজয়ী ইয়ন মর্গ্যান
এড জয়েস

 

কেপলার ওয়েসেলস:

প্রাক্তন দক্ষিণ আফ্রিকা অধিনায়ক কেপলার ওয়েসেলস হলেন ইতিহাসের প্রথম এবং একমাত্র খেলোয়াড় যিনি টেস্ট এবং ওয়ান ডে, দুই ফর্ম্যাটেই ভিন্ন দুটি দেশের হয়ে খেলেছেন। আশির দশকে অস্ট্রেলিয়ার হয়ে মোট ২৪টি টেস্ট এবং ৫৪টি ওয়ান ডে ম্যাচ খেলেছেন ওয়েসেলস। ১৯৯২ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে দক্ষিণ আফ্রিকার সমস্ত নিষেধাজ্ঞা উঠে গেলে তখন নিজের দেশের হয়েও আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে খেলেন তিনি। প্রোটিয়াদের হয়ে তিনি খেলেছেন ১৬টি টেস্ট এবং ৫৫টি ওয়ানডে।

আয়ারল্যান্ডের হয়ে বিশ্বকাপ খেলেছিলেন বিশ্বকাপজয়ী ইয়ন মর্গ্যান
কেপলার ওয়েসেলস

 

বয়েড রেনকিন:

বয়েড রেনকিন উত্তর আয়ারল্যান্ডে জন্মগ্রহণকারী একজন ক্রিকেটার। তিনি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের আঙিনায় ইংল্যান্ড এবং আয়ারল্যান্ড, দুটি দেশের হয়েই ওয়ানডে ক্রিকেট খেলছেন। ক্রিকেট খেলায় তিনি মূলত ডানহাতি মিডিয়াম ফাস্ট বোলার হিসেবে নিজের দায়িত্ব পালন করছেন।

আয়ারল্যান্ডের হয়ে বিশ্বকাপ খেলেছিলেন বিশ্বকাপজয়ী ইয়ন মর্গ্যান
বয়েড রেনকিন

 

লুক রঞ্চি:

নিউজিল্যান্ড জাতীয় দলের হয়ে সব ফর্ম্যাটে ক্রিকেট খেলা উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান লুক রঞ্চির কেরিয়ারের শুরুটা হয় অস্ট্রেলিয়ার হলুদ জার্সিতে। ২০০৮ সালে অস্ট্রেলিয়ার হয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে ১টি টি-২০ ও ৪টি একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেন তিনি।

আয়ারল্যান্ডের হয়ে বিশ্বকাপ খেলেছিলেন বিশ্বকাপজয়ী ইয়ন মর্গ্যান
লুক রঞ্চি

 

ডার্ক ন্যানেস

নেদারল্যান্ডসের কমলা জার্সিতে টি-২০ অভিষেক হওয়া বাঁ হাতি ফাস্ট বোলার ডার্ক ন্যানেস ২০০৯ সালের আইসিসি ওয়ার্ল্ড টি-২০ আসরে দুটি ম্যাচ খেলেছিলেন। একই বছর তার ওয়ান ডে অভিষেকও হয়েছিল, তবে সেটা অস্ট্রেলিয়ার হলুদ জার্সিতে। পরবর্তী সময়ে অস্ট্রেলিয়ার হয়ে ১৫টি-২০ ম্যাচও খেলেছেন তিনি। এমনকী আইপিএলে তিনি চেন্নাই সুপার কিংস দলের সদস্যও ছিলেন।

আয়ারল্যান্ডের হয়ে বিশ্বকাপ খেলেছিলেন বিশ্বকাপজয়ী ইয়ন মর্গ্যান
ডার্ক ন্যানেস

 

রোয়েলফ ভ্যান ডার মারউই:

দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে ওয়ান ডে ও টি-২০ খেলা প্রাক্তন বাঁহাতি স্পিনিং অলরাউন্ডার রোয়েলফ ভ্যান ডার মারউই। তিনি প্রোটিয়াদের হয়ে ১৩টি টি-২০ খেলার পাশাপাশি নেদারল্যান্ডস জাতীয় দলের হয়ে ইতিমধ্যেই ৮টি টি-২০ ম্যাচ খেলে ফেলেছেন।

মন্তব্য করুন