ফিরে আসার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন রুবেল

ফিরে আসার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন প্রয়াত ক্রিকেটার মোশাররফ হোসেন রুবেল। কিন্তু, রুবেলের আর ফিরা হলো না। চিরতরে আপনজনদের কাদিয়ে না ফেরার দেশে চলে গেলেন ক্রিকেটার মোশাররফ হোসেন রুবেল। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে মোশাররফ হোসেন রুবেল তেমন দ্যুতি না ছড়াতে পারলেও ঘরোয়া ক্রিকেটে তিনি ছিলেন একজন নিয়মিত পারফর্মার।

 

ফিরে আসার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন রুবেল
ফিরে আসার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন রুবেল

 

প্রায় তিন বছর ধরে ব্রেইন টিউমারে আক্রান্ত বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক ক্রিকেটার মোশাররফ হোসেন রুবেল। দুই হাজার উনিশ সাল থেকেই জটিল এই রোগে ভুগছিলেন মোশাররফ হোসেন রুবেল।

স্ত্রী ও পাঁচ বছর বয়সী এক সন্তান রেখে গেছেন তিনি।শিক্ষাজীবনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগে ছিলেন তিনি।বাংলাদেশের জাতীয় ক্রিকেট দলের হয়ে পাঁচটি ওয়ানডে ম্যাচ খেলেছেন রুবেল।

[ ফিরে আসার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন রুবেল ]

দুই হাজার বিশ সালে সুস্থ হয়ে উঠেছিলেন তিনি, কিন্তু গত বছর আবারও নতুন করে মস্তিষ্কে টিউমার ধরা পড়ে।

গত মাসে বেশ গুরুতর অবস্থায় রুবেলকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল, চলতি মাসের ১৫ তারিখ বাসায় ফিরেছিলেন।

ঢাকার ইউনাইটেড হাসপাতালের একজন মুখপাত্র জানিয়েছেন, আজ মোশাররফ হোসেন রুবেল আবারও অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়, সেখানে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

শুরুর দিকে যখন মস্তিষ্কের টিউমার ধরা পড়ে তখন সার্জারির জন্য প্রায় দেড় কোটি টাকার প্রয়োজন ছিল বলে তিনি ফ্ল্যাট বিক্রি করে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেন।

ঢাকা ও সিঙ্গাপুরে চিকিৎসা চালিয়ে যেতে হয়েছে বলে সার্জারির আগেই ততদিনে এক কোটি টাকা খরচ হয়ে গিয়েছিল বলে জানান, বন্ধু জাহিদুর রহমান।

বাঁ হাতি স্পিন ও লেট অর্ডারে ব্যাটিং- দুই মিলিয়ে ঢাকার ক্রিকেটে দ্রুতই মানিয়ে নিয়েছিলেন রুবেল। সাকিব আল হাসান-আব্দুল রাজ্জাকদের পূর্বে বাংলাদেশের অন্যতম সেরা স্পিনার মোহাম্মদ রফিকের অবসরের পর জাতীয় দলে ডাক পেয়েছিলেন তিনি।

তার প্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচটি ছিল ২০০৮ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে একটি ওয়ানডে সিরিজে।

কিন্তু কয়েক মাস পরেই কথিত বিদ্রোহী ক্রিকেটারদের লিগ, ইন্ডিয়ান ক্রিকেট লিগে যোগ দেয়ায় রুবেল বেশিদিন খেলতে পারেননি জাতীয় দলে। তখন আইসিএলগামী ক্রিকেটাররা বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের কাছে অবসরের চিঠিও দিয়েছিলেন।

ফিরে আসার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন রুবেল
অনুশীলনে মোশাররফ হোসেন রুবেল

 

২০০৯ সালে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার পর তখন বাংলাদেশের ঘরোয়া ক্রিকেটে ফেরেন মোশাররফ রুবেল।২০০১-০২ মৌসুম থেকে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট খেলেছেন এই বাহাতি স্পিনার।রুবেল ঘরোয়া ক্রিকেটে তিন ফরম্যাটেই অবদান রেখেছেন।২০১৩ সালে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের ফাইনাল ম্যাচে ম্যাচ সেরার পুরষ্কার পেয়েছিলেন।

যদিও মূলত ছিলেন বাহাতি স্পিনার কিন্তু প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে তার নামের পাশে রয়েছে ৩৩০৫ রান, সেঞ্চুরিও করেছেন দুটি, ১৬টি হাফ সেঞ্চুরি করেছেন তিনি বাংলাদেশের ঘরোয়া ক্রিকেটে।প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে তিনি ৩৯২টি উইকেট নিয়েছিলেন।ব্রেইন টিউমার ধরা পড়ার আগে শেষবার ২০১৯ সালে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের হয়ে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের ম্যাচ খেলেছিলেন মোশাররফ রুবেল।

প্রায় তিন বছরের বেশি সময় ধরে ব্রেইন টিউমারের সঙ্গে লড়াই করে অবশেষে না ফেরার দেশে পাড়ি জমিয়েছেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের বাঁহাতি স্পিনার মোশাররফ রুবেল।

 

ফিরে আসার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন রুবেল
হাসপাতালে থাকা অবস্থায় মোশাররফ হোসেন রুবেল

 

দেশের বাইরে গিয়ে কেমোথেরাপিসহ জটিল সব চিকিৎসার মধ্য দিয়ে যেতে হয়েছে তাকে।

গত মাসের মাঝামাঝি শারীরিক জটিলতা নিয়ে রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি হন।

চারদিন আগে শারীরিক অবস্থার উন্নতি হওয়ায় হাসপাতাল থেকে ছাড়াও পান রুবেল। কিন্তু সোমবার শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে দ্রুত হাসপাতালে নেওয়া হয়। মঙ্গলবার বিকাল ৫টার দিকে না ফেরার দেশে পাড়ি জমান রুবেল।

২০১৯ সালের মার্চে ব্রেন টিউমার ধরা পড়ে রুবেলের। সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে ২০১৯ সালের ১৯ মার্চ নিউরো সার্জন এলভিন হংয়ের তত্ত্বাবধানে সফল অস্ত্রোপচার হয় তার।

২০২০ সালে সুস্থ, স্বাভাবিক হয়ে মাঠে ফেরার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। কিন্তু নভেম্বরে আবার অসুস্থ হন। ২০২১ সালের জানুয়ারির শেষ সপ্তাহে এমআরআই করার পর দেখা গেছে, পুরোনো টিউমারটি আবার নতুন করে বাড়ছে।

ঘরোয়া লিগে নিয়মিত খেলে যাওয়া রুবেল প্রথম শ্রেণির ১১২ ম্যাচে অংশ নিয়ে ৩৯২ উইকেট শিকারের পাশাপাশি ব্যাট হাতে দুই সেঞ্চুরি আর ১৬টি ফিফটির সাহায্যে ৩ হাজার ৩০৫ রান সংগ্রহ করেন।

 

ফিরে আসার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন রুবেল
সতীর্থদের সঙ্গে মোশাররফ হোসেন রুবেল

 

লিস্ট ‘এ’ ১০৪ ম্যাচে অংশ নিয়ে ১২০ উইকেট শিকারের পাশাপাশি ব্যাট হাতে ৮ ফিফটির সাহায্যে ১ হাজার ৭৯২ রান সংগ্রহ করেন। আর টি-টোয়েন্টির সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটে ৫৬ ম্যাচে অংশ নিয়ে ৬০ উইকেট শিকারের পাশাপাশি ৬২ রান সংগ্রহ করেন রুবেল।

জাতীয় দলের সাবেক ক্রিকেটার মোশাররফ হোসেন রুবেলের প্রথম জানাজা সম্পন্ন হয়েছে। মঙ্গলবার রাত ৮টার দিকে রাজধানীর বারিধারা ডিওএইচ জামে মসজিদে এ জানাজা হয়। ক্রিকেটার মোশাররফ রুবেলের পারিবারিক সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

ক্রিকেটার মোশাররফ রুবেলের মরদেহ সর্বসাধারণের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য মিরপুর স্টেডিয়ামে নেয়া হয়েছিল। সেখানে রাত ১০টায় তার দ্বিতীয় জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজা শেষে তার মরদেহ বনানী কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

আরও দেখুনঃ 

মন্তব্য করুন