বিশ্বকাপে ক্যাচিং এ ওমানেরও পেছনে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল !!!

বিশ্বকাপে ক্যাচিং এ ওমানেরও পেছনে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল !!!

“He is Unbelievable , He is special , How come a man can fly that much in the air .”. সাবেক দক্ষিণ আফ্রিকান ক্রিকেটার জন্টি রোডসের ব্যাপারে এভাবেই ধারাভাষ্যে বলেছিলেন প্রয়াত ধারাভাষ্যকার রিচি বেনো । ৯০ এর দশকে এমন কত ম্যাচ আছে যেখানে ব্যাটিং-বোলিং ছাপিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকার জয়ের মূল টনিক ছিল ফিল্ডিং । আরো গভীরে গিয়ে বললে, অসম্ভব সব ক্যাচ।

 

কথায় আছে, ক্যাচ মিস তো ম্যাচ মিস । ক্রিকেটের বহুল প্রচলিত বাক্য এটি । আবার অন্যভাবেও বলা যায়, একটা ভাল ক্যাচ কঠিন ম্যাচকেও সহজ করে ফেলতে পারে । অনেক সময়ই ব্যাটিং-বোলিং এর ব্যার্থতাকে ভালো ফিল্ডিং বা ক্যাচিং দিয়ে ছাপিয়ে যেতে পারে যে কোন দল ।  আবার কখনো কখনো একটা ক্যাচ মিস ম্লান করে দিতে পারে সুন্দর একটা সেঞ্চুরির আনন্দকে ।

 

বিশ্বকাপে ক্যাচিং এ ওমানেরও পেছনে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল
লিটন দাসের ক্যাচ ড্রপ ভুগিয়েছে বাংলাদেশকে

৯৯ এর বিশ্বকাপে  স্কটল্যান্ড ম্যাচে  ফারুক আহমেদের   ক্যাচ  ছিল বিশ্বকাপে বাংলাদেশের প্রথম জয়ের টার্নিংপয়েন্ট । সম্ভাবনা জাগানো স্কটিশ ক্যাপ্টেনকে পয়েন্টে তালুবন্দি করেছিলেন ফারুক ।  আবার, সেই বিশ্বকাপেই  হার্শেল গিবস এর এই ক্যাচ ড্রপ বিশ্বকাপ স্বপ্নভংগ করেছিল দক্ষিণ আফ্রিকার ।

 

 

সময় বদলেছে , টি টোয়েন্টি এসেছে । মডার্ন ডে ক্রিকেটে ব্যাটিং বোলিং এর সাথে সমান গুরুত্বপূর্ণ ফিল্ডিং । আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে এই জায়গাটিতেই উপর-নিচ টাইগারদের ।  চলতি টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপে অবশ্য ক্যাচিং দক্ষতার গ্রাফটা নিম্নমুখী ।

[ বিশ্বকাপে ক্যাচিং এ ওমানেরও পেছনে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল !!! ]

শ্রীলংকার সাথে ম্যাচে ডিপ স্কয়ার লেগ এবং ডিপ মিড উইকেটে লিটন কুমার দাসের দুটি ক্যাচ ড্রপ ম্যাচ থেকে পুরোপুরি ছিটকে দিয়েছে বাংলাদেশকে । অথচ যে সময়ে প্রথম ক্যাচটি উঠেছিল সেই সময়ে ৫ম উইকেটের পতন ঘটাতে পারলে ম্যাচের ড্রাইভিং সিটেই থাকতো টাইগাররা ।  ভানুকা রাজাপাকসে এবং আসালাংকা, দু’জনই করেছেন হাফ সেঞ্চুরি ; একজন ম্যাচ শেষ করে বের হয়েছেন , আরেকজন শেষের কিছু আগে আউট হয়েছেন ।

bd vs sl 20211024193726 ক্রিকেট গুরুকুল, GOLN
আসালাংকার ক্যাচ ধরতে পারলে ম্যাচ হত বাংলাদেশের

অনেকেই এই ম্যাচ হারার পেছনে মাহমুদুল্লাহর অধিনায়কত্বকে দায়ী করতে পারেন । মোমেন্টাম থাকা অবস্থায় কেন ৬ষ্ঠ এবং ৭ম বোলারকে ব্যাবহার করতে হবে? তবে, ৭ম বোলার আফিফের বলে যে সম্ভাবনা তৈরী হয়েছিল, ডিপ স্কয়ার লেগে সেই ক্যাচ লিটন না ছাড়লে আলোচনাটা অন্যভাবেই হতে পারতো । হয়তোবা বলা হত, সঠিক সময়ে ব্রেক থ্রুর জন্য সঠিক সিদ্ধান্তই নিয়েছেন রিয়াদ ।

শুধুমাত্র শ্রীলংকা ম্যাচ নয়, ক্যাচিং বাংলাদেশকে ভোগাচ্ছে এই টুর্নামেন্টের শুরু থেকেই । ওমানের সাথে ম্যাচে মাহমুদুল্লাহ-তাসকিনের ক্যাচ ড্রপ চোখে আংগুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছিল ফিল্ডিং এ টাইগারদের দুর্বলতা । সেদিন পরে অবশ্য মাহেদী, সাকিবের বোলিং এ ম্যাচে ফিরে এসেছিল বাংলাদেশ ।

এই বিশ্বকাপে শ্রীলংকা ম্যাচ পর্যন্ত  ২৫ টি ক্যাচের সম্ভাবনা তৈরী হয়েছে , যার মধ্যে ৮ টিই ফেলে দিয়েছে টাইগাররা ।  সামগ্রিকভাবে দেখা যাচ্ছে টাইগারদের ক্যাচিং দক্ষতা ৬৮% ,   যেখানে   ক্যাচিং দক্ষতায় বাংলাদেশের থেকে এগিয়ে আয়ারল্যান্ড, ওমান, স্কটল্যান্ড, নেদারল্যান্ডস এবং পাপুয়া নিউগিনি । আয়ারল্যান্ড-ওমানের ক্যাচিং দক্ষতা যেখানে ৮০ শতাংশের উপর , সেখানে একটা টেস্ট খেলুড়ে দেশ ক্যাচিং দক্ষতায় তাদের চাইতে ঢেড় পিছিয়ে ।

[ বিশ্বকাপে ক্যাচিং এ ওমানেরও পেছনে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল !!! ]

ওমানের সাথে ম্যাচে মাহমুদুল্লাহর ক্যাচ মিসের পর সংবাদ সম্মেলনে সাকিব আল হাসান তার ব্যাখ্যাও দিয়েছিলেন । ওমানে ফ্লাডলাইটে ক্যাচ ধরতে সমস্যা হওয়ার কারণ , নিচু ফ্লাডলাইট । যে কারণে প্রোপার জাজমেন্ট করা সম্ভব হয় না ।

সেই সাথে সাকিব এ ও বলেছিলেন রাতের বেলা মনে হয় বল অনেক দ্রুত মাটিতে নামছে । এই বিষয়টা কি আসলেই সঠিক ? ওমান-আরব আমিরাতের সাইন্স অফ গ্র্যাভিটি আর পৃথিবীর অন্য জায়গায় সাইন্স অফ গ্র্যাভিটি কি ভিন্ন ?

উত্তরটা হয়তোবা পাঠক আপনাদেরই জানা আছে । এখানে মূল সমস্যার জায়গাটা মানসিকতা । জন্টি রোডস একবার বলেছিলেন , তুমি ততক্ষণ পর্যন্ত না ভালো ফিল্ডার হতে পারবে যতক্ষণ পর্যন্ত তুমি ফিল্ডিংটাকে উপভোগ করছ ।

ফিল্ডিং বা ক্যাচিং উপভোগের জায়গাটা যে কম করছে বাংলাদেশ সেটা সাম্প্রতিক সময়ে মাঠে তাদের বডি ল্যাংগুয়েজ দেখলেই বোঝা যায় । কখনো খুব ভাল, কখনো আবার খুব খারাপ । এই inconsistency সামগ্রিকভাবে ভোগাচ্ছে বাংলাদেশ দলকে ।

[ বিশ্বকাপে ক্যাচিং এ ওমানেরও পেছনে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল !!! ]

যখন দু পক্ষ থেকে ভালো ক্রিকেট হয় তখন বেটার ক্রিকেট খেলা দলটাই ম্যাচ জেতে । আর বেটার ক্রিকেট খেলার জন্য সঠিক সময়ের সঠিক সুযোগটা কাজে লাগাতে হয় । লিটন কুমার দাসের দুই ক্যাচ মিসে সেই দিনে বেটার হওয়ার সুযোগটা কাজে লাগাতে পারেনি বাংলাদেশ । দুই জন সেট ব্যাটসম্যানের দুটি উইকেট ম্যাচে ফেরাতে পারতো বাংলাদেশকে । অথচ এই লিটনই চলতি বছর উইন্ডিজের সাথে সিরিজে ফিল্ডার হিসেবে কঠিন ক্যাচ ধরে চমকে দিয়েছিলেন সবাইকে । আন্তর্জাতিক টি টোয়েন্টিতে এক ম্যাচে ৩ টি ক্যাচ ধরার ও রেকর্ড রয়েছে লিটনের । কিন্তু এ যাত্রায় কঠিনেরে আপন করে সহজটাকে দূরে সরিয়ে দিলেন , এই আফসোসটা দর্শকদের চাইতে লিটনকেই পোড়াচ্ছে বেশী ।

[ বিশ্বকাপে ক্যাচিং এ ওমানেরও পেছনে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল !!! ]

আরও পড়ুন:

“বিশ্বকাপে ক্যাচিং এ ওমানেরও পেছনে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল !!!”-এ 1-টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন